প্রিয় ৯০ মিনিট

প্রিয় ৯০ মিনিট

by admin
90 views

প্রিয় ৯০ মিনিট

বহুল প্রতীক্ষিত প্রিয় ৯০ মিনিট কিংবা ৫ হাজার ৪০০ সেকেন্ডের একটি ম্যাচ ; এক্সট্রা মিনিটই বা বাদ যাবে কেনো? যার প্রতিটা মূহুর্ত উত্তেজনায় ভরপুর। বলছিলাম ফুটবল ম্যাচের কথা। ঠিক যেন ৯০ মিনিটের জন্য অন্য একটা জগত, অন্য একটা বিশ্বে ভ্রমণ করা।
.
স্বাভাবিকভাবেই দুঃখ – কষ্ট, হতাশা, চিন্তা ইত্যাদি মানুষের জীবনের একেকটি অবিচ্ছেদ্য অংশ। যা থেকে মানুষ পরিত্রাণ পেতে চায়। এত কিছুর ভীড়ে তারা একটু শান্তি চায়, একটু আনন্দ পাওয়ার দৃঢ় প্রত্যাশী হয়ে উঠে, জানতে চায় জীবনের যাবতীয় সমস্যাবলী ভুলে থাকার কোন মন্ত্র পৃথিবীতে আছে কিনা। হোক না সেটা ক্ষণিকের জন্য, তবুও সেটা চাই-ই চাই! তাই মানুষ নিজ নিজ পদ্ধতিতে সেটা খুঁজতে থাকে। কেউ কেউ বেছে নেয় বিভিন্ন নেশার পথ ; মাদকদ্রব্য তাদের নিত্যদিনের সঙ্গী হয়ে দাঁড়ায়। আবার কারো কারো জীবনে কিছু অগ্রহণযোগ্য পরিবর্তন চলে আসে ; বিভিন্ন সমস্যার প্রভাবে তাদের ব্যবহার, আচার-আচরণ অস্বাভাবিক হয়ে যায়। ফলে জীবন হয়ে উঠে অতিষ্ট। বলতে গেলে কারো জীবনই এসব সমস্যার উর্ধ্বে নয়।
.
এগুলো ছিল মানুষের জীবনের স্বাভাবিক কিছু প্রক্রিয়া। তবে আরো এমনি একটি নেশা আছে, যা আপনাকে আপনার জীবনের উল্লেখিত সমস্যাগুলো থেকে সাময়িক পরিত্রাণ দিতে পারে। দিতে পারে সেই শান্তি, সেই আনন্দ, আপনি যেটার খুঁজে ছিলেন। আর সেটাই ফুটবল বিশ্ব।
.
প্রিয় দল, প্রিয় খেলোয়াড়, তার করা প্রত্যেকটি গোলের অনূভুতি, তাকে একটু অস্বাভাবিকভাবে হাঁটতে দেখলে ইঞ্জুরির আশংকায় ভয় পেয়ে যাওয়া, তাকে ফাউলড হতে দেখলে বুকের ভিতর রক্তক্ষরণ, ফাউলড হওয়ার পর ‘প্রিয় প্লেয়ারটার ব্যথা কতটুকু জানতে আসা এবং ফাউলকারী প্লেয়ারের প্রতি জবাবদিহি চেয়ে মুখভর্তি রাগ নিয়ে এগিয়ে যাওয়া টিমমেটের প্রতি অটো ভালোলাগা চলে আসা ; সর্বোপরি একটি ম্যাচের ৯০টা মিনিট যেন অন্য একটা বিশ্ব, অন্য একটা জগত থেকে ভ্রমণ করে আসার মতো৷ যেই সময়টুকুতে আপনার জীবনের অতীত এবং ভবিষ্যৎ-কেন্দ্রীক সকল চিন্তা থাকবে ছুটিতে।

প্রিয় ৯০ মিনিট

কিন্তু আজ করোনা নামক এক মহামারী ভাইরাসের জন্য সেই ৯০ মিনিট অমাবস্যার চাঁদ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ফুটবল ভক্তরা এই সময়টা কতটা কষ্টে কাটাচ্ছে, সেটা লিখে বা বলে বুঝানো অসম্ভব। কারণ এটাইযে ছিল তাদের ভাল না লাগার মেডিসিন! জীবনের সমস্যাগুলো ভুলে থাকার এক বিশেষ ড্রাগ! আশা করি এই মহামারী কাটিয়ে ফুটবল আবার আমাদের মাঝে ফিরে আসবে। আবারো সেই চিরচেনা ৯০ মিনিটের অপেক্ষায় রইলাম।

লিখেছেন : Mohammad Sarwar Kamal

Related Posts

Leave a Comment